রবিবার, ১৯ আগষ্ট, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
মৌলভী ছাইর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন   » «   শাহগলী আদর্শ শিশু বিদ্যানিকেতনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী পালন  » «   বারহালে মাদক,সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আলোচনা সভা সম্পন্ন  » «   আটগ্রামে স্কুল ছাত্র সাজুর ইন্তেকাল  » «   আটগ্রামে সরকারি গোপাট উন্মুক্ত করতে ইউএনও বরাবরে অভিযোগ  » «   কালিগঞ্জ বাজারে একটি দোকানে দুর্ধর্ষ চুরি  » «   রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা কুন্টি মিয়ার দাফন সম্পন্ন  » «   জকিগঞ্জে ডিজিটাল কনটেন্ট বিষয়ে দিন ব্যাপি কর্মশালা  » «   নৌকার সমর্থনে মাসুক উদ্দিন আহমদের গণ সংযোগ  » «   ৯ইউপি ও ১পৌরসভায় ত্রাণ বিতরণ করবে জকিগঞ্জ সোসাইটি অব ইউএসএ ইন্ক  » «  

হকারদের হামলার প্রতিবাদে সিলেট সিটি মেয়রের মিছিল

সিলেট সিটি কর্পোরেশনে (সিসিক) হকারদের হামলার প্রতিবাদে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (৫ জুন) সিসিক প্রাঙ্গণ থেকে শুরু হয়ে মিছিলটি ক্বীন ব্রিজ এলাকা ঘুরে আবার সিসিক প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়।

এসময় ভ্রাম্যমাণ হকাররা নিজেদের দোকানপাট দ্রুত গুটিয়ে নিতে দেখা যায়। তবে মিছিলের কর্মসূচি শেষে হকাররা পুনরায় ফুটপাতে ও রাস্তায় নিজেদের ব্যবসা চালু করেন।

এর আগে, সড়ক থেকে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে গতকাল সোমবার (৪ জুন) বিকেলে হকার্স লীগ নেতা রকিবের নেতৃত্বে নগর ভবনে হামলা চালায় হকাররা। এসময় প্রায় শতাধিক হকার একজোট হয়ে ভাঙচুর চালায় বন্দরবাজার এলাকা জুড়ে। বাদ পড়েনি সড়কে চলাচলরত যানবাহনও। ইট পাটকেল ছোঁড়া হয় নগর ভবনের দিকে। এসময় সিসিকের কয়েকজন কর্মচারীকেও লাঞ্ছিত করে তারা।

ঘটনার পরপরই বিকেল সাড়ে পাঁচটায় নগর ভবনে সংবাদ সম্মেলন করেন মেয়র। সংবাদ সম্মেলনে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, সিসিকের কর্মচারীরা ফুটপাতে না বসতে হকারদের অনুরোধ জানিয়েছিল। এরপরই আব্দুর রকিবের নেতৃত্বে হকাররা সংঘবদ্ধ হয়ে নগর ভবনে হামলা চালায়। আমার অফিস কম্পাউন্ডে এসে সিটি কর্পোরেশনের গাড়িতে ঢিল মারে।

এরপর সোমবার রাতেই নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে এ বিষয়ে সভা ডাকেন মেয়র আরিফুল হক। সভায় নগর ভবনে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারে চব্বিশ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেন সিলেটের ব্যবসায়ী ও নাগরিক প্রতিনিধিরা। আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট মোহাম্মদ লালার সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন সিলেটের সর্বস্তরের ব্যবসায়ী নেতা, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা।

সভা শেষে সর্বসম্মতিক্রমে ৩টি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। আর এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সর্বস্তরের ব্যবসায়ী ও জনসাধারণের সহযোগিতা কামনা করেন মেয়র। সিদ্ধান্তগুলো হলো, ২৪ ঘন্টার মধ্যে অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা না হলে নগরীর সকল বিপনীবিতানে সর্বাত্মক ধর্মঘট পালন, বর্তমান সরকারের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের নিকট লিখিতভাবে অবহিতকরণ এবং সরকারি কাজে বাধা ও সরকারি সম্পদে হামলার কারণে দুষ্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.