বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
হাফছা কলেজ ছাত্রী তানিয়া আক্তার ঝুমার বিষ পানে মৃত্যু  » «   প্রবাসীর মেয়ে ইসমত আরা বিসিএস ক্যাডার হতে চায়  » «   জকিগঞ্জ পৌর এলাকায় গ্যাসের সন্ধান; বাপেক্স কর্মকর্তাদের স্থান পরিদর্শন  » «   জকিগঞ্জে অমর একুশে বই মেলা শুরু  » «   হাজী আব্দুল আজিজ তাপাদার গার্লস একাডেমির শিক্ষা সফর  » «   বালাউট ছাহেব বাড়ি সংলগ্ন হাফিজিয়া মাদ্রাসার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন  » «   আলোর দিশারী সংস্থার পুরস্কার প্রদান ও সৌর বিদ্যুৎ লাইটের উদ্বোধন  » «   ২০১৯ সালের ১৪ ও ১৫ ফেব্রুয়ারী হাড়িকান্দি মাদ্রাসার শতবার্ষিকী পালন করা হবে  » «   ইছামতি কামিল মাদরাসার ৭২তম বার্ষিক মহাসম্মেলন আগামীকাল রবিবার  » «   নান্দিশ্রী ছাত্র কল্যাণ সংস্থার আত্মপ্রকাশ  » «  

সেনাবাহিনীর দখলে মালদ্বীপের পার্লামেন্ট

মালদ্বীপের সেনাবাহিনী দেশটির পার্লামেন্টের দখল নিয়েছে। গ্রেপ্তার করেছে বিরোধী দলের দুই এমপিকে। কারান্তরীণ রাজনীতিকদের মুক্তি দিতে প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিনের অস্বীকৃতিকে কেন্দ্র করে দেশটির রাজনৈতিক পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়া শুরু করে। তারই সূত্র ধরে গতকাল দেশটির সেনাবাহিনী পার্লামেন্টের দখল নিয়েছে।
আল-জাজিরার খবরে বলা হয়, বিরোধী দল  গতকাল পার্লামেন্টে দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল ও শীর্ষ প্রসিকিউটরকে অপসারণের জন্য পিটিশন দাখিল করে। এর কিছুক্ষণ পরেই সেনারা পার্লামেন্ট ভবন ঘিরে ফেলে।

বিরোধী দলের অভিযোগ, নির্বাসিত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে দণ্ডাদেশ পাল্টে সুপ্রিম কোর্ট তাদের মুক্তির যে রায় দিয়েছে তা পালন করতে ব্যর্থ হয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল ও প্রসিকিউটর।
শীর্ষ আদালতের রায় দেশটির রাজনীতিতে নতুন করে ঝড় তুলেছে। প্রেসিডেন্ট ইয়ামিনের জন্য এটা নতুন একটি ধাক্কা। ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি, দুঃশাসন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। এসব অভিযোগ অবশ্য তিনি প্রত্যাখ্যান করেন।
খবরে বলা হয়, আদালতের রায়ে পার্লামেন্টের ১২ সদস্য পুনর্বহাল হওয়ায় ৮৫ সদস্যের পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ফিরে পায় বিরোধী দল। তবে ওই ১২ জনের দু’জন কয়েক মাস পর দেশে ফিরলে তাদের বিমানবন্দরে আটক করা হয়। আব্দুল্লাহ সিনান ও ইলহাম আহমেদ নামের ওই দুই নেতাকে ঘুষের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে আল জাজিরাকে জানান পুলিশের এক মুখপাত্র।
বিরোধী দলের সংসদীয় নেতা ইব্রাহীম মোহাম্মদ সোলিহ এক বিবৃতিতে তাদের গ্রেপ্তারের নিন্দা জানান। অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ অনিল গতকাল টিভিতে প্রচারিত এক বক্তব্যে অভিযোগ করেন সুপ্রিম কোর্ট প্রেসিডেন্টকে অভিশংসিত করার চেষ্টা করছে। এরপরই তাকে অপসারণের জন্য পার্লামেন্টে বিল আনে বিরোধী দল। ওই বক্তব্যে অনিল বলেছিলেন, ‘আমি সকল আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে বলেছি, এমন অবৈধ আদেশ যেন তারা না মানেন।’
দেশটির সেনাপ্রধান আহমেদ শিয়াম বলেন, ‘নিরাপত্তা বাহিনী অনিলের পরামর্শ অনুসরণ করবে এবং দেশকে সংকটের দিকে ধাবিত হতে দেখার জন্য অপেক্ষা করবে না।’
ওদিকে, দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট নাশিদ টুইটারে দেয়া এক পোস্টে অনিলের বিবৃতিকে ‘অভ্যুত্থানের সমতুল্য’ বলে আখ্যা দিয়েছেন।
প্রসঙ্গত, মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্টের যে রায় নিয়ে এত উত্তেজনা তা স্বাগত জানিয়েছে জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ অন্যরা। দেশগুলো মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টেকে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের আহ্বান জানিয়েছেন।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.