রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
২২টি গ্রামে বৃহত্তর ইছামতি কালিগঞ্জ প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা’র ঈদ সামগ্রী বিতরণ  » «   সোনাপুর-সুপ্রাকান্দি ডেভল্যাপমেন্ট সোসাইটির ঈদ সামগ্রী বিতরণ  » «   কাতারে জকিগঞ্জের আব্দুল মুহিম মিনুর মৃত্যু  » «   জকিগঞ্জে ১৩০বোতল অফিসার চয়েজসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   শাহ মোঃ ফয়ছল চৌধুরী কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন  » «   বৃহত্তর আটগ্রাম প্রবাসী সমাজ কল্যাণ পরিষদের ঈদ সামগ্রী বিতরণ  » «   প্রতিবন্ধী ও দরিদ্রদের মধ্যে স্পেন প্রবাসী মাসহুদের ইফতার  » «   ইউএনও শহীদুল হকের ইন্তেকালে এইচটিএ সেবা ফাউন্ডেশনের শোক  » «   জকিগঞ্জে এমপি প্রার্থী এম জাকির হোসাইনের সমর্থনে ইফতার  » «   জকিগঞ্জের সাবেক ইউএনও শহীদুল হকের দাফন  » «  

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি


সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন। অনুষ্ঠানের মধ্যমণি রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। আচার্য হিসেবে গুরুগম্ভীর বক্তব্যের পাশাপাশি হাস্যরসের মাধ্যমে জীবনের কঠিন বাস্তবতা তুলে ধরলেন তিনি।

গ্র্যাজুয়েটদের প্রতি রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘এবার লাঙ্গলের জোয়াল কাঁধে পড়বে। এতদিন বাবার টাকায় চলেছ, এখন আর তা চলবে না। এবার নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে। অবস্থা বড়ই কঠিন।’

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা ৫ মিনিটে সিলেট পৌঁছান রাষ্ট্রপতি। পরে তিনি হযরত শাহজালাল ও শাহপরাণ (রহ.)-এর মাজার জিয়ারত করেন। এরপর তিনি যোগ দেন সমাবর্তন অনুষ্ঠানে। সেখানে এক হাজার ৭৩৩ জন গ্র্যাজুয়েট সনদ অর্জন করেন।

রাষ্ট্রপতি প্রায় সময়ই রসিকতা করতে পছন্দ করেন। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে তার নানা বক্তব্যে হাসির রোল উঠেছে। সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়েও সেই একই চিত্র দেখা গেছে।

তরুণদেরকে সব ক্ষেত্রেই নেতৃত্ব নিতে হবে মন্তব্য করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘আমরা বৃদ্ধ, জঞ্জাল। আমরা চলে গেলে তোমরা দেশকে আরো সুন্দরভাবে চালাতে পারবে।’

‘একটি গান আছে, দূরের মানুষ কাছে আসুক’, এই গান গাইলেও আমার কাছে আসতে পারবে না, আমিও তোমাদের কাছে যেতে পারব না।’

সিলেট হাওর এলাকা হিসেবেই পরিচিত। এই হাওরেরই মানুষ আবদুল হামিদ। কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে তার জন্ম, বেড়ে উঠা, এই এলাকা থেকেই তিনি বারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘আজকে যারা গোল্ড মেডেল পেয়েছে তাদের মধ্যে দুইজন হাওর এলাকার লোক। আমি নিজেও হাওর এলাকার। আমি যেহেতু আসছি, তাই হাওর একটু বেশিই পেল।’

মঞ্চে উপবিষ্ট রাষ্ট্রপতির সামনে বসে থাকা শিক্ষার্থীদের ভালোভাবে দেখতে পারছিলেন না রাষ্ট্রপতি। আর বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, সময় স্বল্পতার কারণে বেশি কিছু বলার নেই। তার উপর গ্র্যাজুয়েটদের মুখও দেখতে পারছি না।

কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্যে তাগিদ

সমাবর্তনে কৃষিখাতে বাংলাদেশের সাফল্য অভাবনীয় উল্লেখ করে এর পেছনে কৃষকদের পাশাপাশি কৃষিবিদদের অবদানের কথা তুলে ধরেন রাষ্ট্রপতি। বলেন, ‘তারা (কৃষিবিদ) পরিবেশ উপযোগী প্রযুক্তি উদ্ভাবনসহ সব পর্যায়ে তা দ্রুত হস্তান্তর ও বিস্তারেও ভূমিকা রাখছেন।’

কৃষিতে উন্নতি ধরে রাখতে হলে কৃষকরা যেন চাষাবাদ করে লাভবান হতে পারে, সেদিনে নজর রাখারও তাগাদা দেন রাষ্ট্রপতি। বলেন, ‘কৃষিতে উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে হলে কৃষকপর্যায়ে কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হবে।’

সরকারের নিরলস প্রচেষ্টায় জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বৈরিতা মোকাবেলা করে খাদ্যশস্য উৎপাদনে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে একটি বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে বলেও উল্লেখ করেন আবদুল হামিদ। বলেন, ‘ধান, গম, ভুট্টা, সবজি, মাছ মাংস ডিম ও দুধ উৎপাদনে বিশ্বের অন্যান্য দেশের গড় উৎপাদনকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশ অব্যাহতভাবে এগিয়ে চলেছে। এটি সম্ভব হয়েছে সরকারের বাস্তবমুখী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে।’

কেবল কৃষি নয়, বাংলাদেশ সব খাতেই ব্যাপক উন্নতি করেছে জানিয়ে রাষ্ট্র্রপতি বলেন, বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন ও অগ্রগতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। রূপকল্প-২০২১ ও ২০৪১ এর পথচিত্র অনুসরণ করে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়ক ধরে এগিয়ে চলেছে।

বর্তমান যুগকে হচ্ছে বিশ্বায়ন ও জ্ঞানভিত্তিক অর্থনীতির যুগ উল্লেখ করে তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ বিশ্বব্যবস্থায় একটি বিশ্ববিদ্যালয়কে টিকে থাকতে হলে তার স্থানিক, জাতিক ও বৈশ্বিক অবস্থান স্পষ্ট করতে হবে বলেও মনে করেন রাষ্ট্রপতি। বলেন, এটি সুনির্দিষ্ট করা সম্ভব প্রাতিষ্ঠানিক উপযোগিতা, মান ও আন্তর্জাতিক চারিত্র্য নিশ্চিত করার মাধ্যমে।

সমাবর্তনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন- শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ফরাস উদ্দিন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য গোলাম শাহী আলম, রেজিস্টার বদরুল ইসলাম শোয়েব প্রমুখ। (ঢাকা টাইমস)

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.