বুধবার, ২৩ মে, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
বারহাল ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন  » «   জকিগঞ্জে ফার্মাসিউটিকেলস রিপ্রেজেন্টেটিভ এসো: কমিটি গঠন  » «   বাসের ধাক্কায় জকিগঞ্জের সুমনের মর্মান্তিক মৃত্যু  » «   জাতীয় পার্টির যুক্তরাজ্য শাখার সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন হেলালের দেশে প্রত্যাবর্তন  » «   বারহাল ছাত্র পরিষদের আজীবন সদস্য, লন্ডন প্রবাসী আজিজ আহমদকে সংবর্ধনা  » «   সমাপনী পরীক্ষায় উত্তীর্ন ছাত্র-ছাত্রীদের সংবর্ধনা প্রদান  » «   জকিগঞ্জ-সিলেট সড়ক দ্রুত সংস্কার করতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিলেন সেলিম উদ্দিন এমপি  » «   বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত জকিগঞ্জ হাসপাতাল  » «   বারহাল ছাত্র পরিষদের আজীবন সদস্য জনাব আজিজ আহমদ কে সংবর্ধনা প্রদান সম্পন্ন  » «   আল্লামা মকদ্দছ আলীর সহধর্মীনির দাফন সম্পন্ন  » «  

সিলেটের মধ্যে সুপারীর সব চেয়ে বড় বাজার জকিগঞ্জে

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিলেটের জকিগঞ্জের প্রায় প্রতিটি বাড়িতে সুপারি গাছ রয়েছে। আর প্রতিটি গাছে কম-বেশি সুপারি ধরে। বছরের ভাদ্র থেকে ফাল্গুন মা্স পর্যন্ত পাকা সুপারি বাজারে বিক্রি হয়। সুপারি বিপ্লব হওয়াতে প্রায় প্রতিটি পরিবারে কিছুটা স্বচ্ছলতা ফিরে আসে। শুধুমাত্র এ ৬-৭মাসের জন্য নতুন নতুন ভ্রাম্যমান ব্যবসা খোলা হয়। শুধুমাত্র সুপারি ক্রেতা ও বি্ক্রেতা এবং শ্রমিক মিলে কয়েক শ মানুষের সাময়িক কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। লাকী এন্টারপ্রাইজ, কাদির ব্রাদার্স, মাসুক ব্রাদার্স, শামীম এন্টারপ্রাইজ, আলতা ব্রাদার্সসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা হয়। জকিগঞ্জ বাজার, কালিগঞ্জ, শাহগলী, বাবুর বাজার, শরীফগঞ্জ, ঈদগাহ বাজার, টুকের বাজারে প্রতি হাটে সুপারি বাজার বসে। এদের মধ্যে সব চেয়ে বড় সুপারি হাট বসে জকিগঞ্জ বাজারে। দূর-দূরান্ত অর্থাৎ ঢাকা, রংপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, দিনাজপুর, সৈয়দপুরে সুপারি সরবরাহ করেন জকিসুপারি ব্যবসায়ীরা। আশ্বিন মাস পর্যন্ত সুপারির দাম কম ছিল। বর্তমানে বাজার অনেক চড়া রয়েছে বলে জানান সুপারি ব্যবসায়ীরা। বাড়ি থেকে সুপারি কিনে বড় বাজার গুলোতে বিক্রি করে ফড়িয়ারা। ঈদগাহ বাজারের ক্ষুদে ব্যবসায়ী আব্দুল মন্নান, টুকের বাজারের জোনাব আলী জানান, ভাদ্র-আশ্বিন মাসে প্রতি বি (৪০০টি সুপারি) ৩০০টাকা থেকে ৫০০টাকা পর্যন্ত। বর্তমানে সুপারি ভেদে ৬০০টাকা থেকে ১হাজার টাকা পর্যন্ত দাম রয়েছে। তারা বলেন প্রতি বাড়ি থেকে সুপারি কিনে জমা করে জকিগঞ্জ বাজারে বিক্রি করি। এতে কিছু টাকা মুনাফা হয়। তা দিয়ে আমাদের পরিবার চলে।

হাইলইসলামপুর গ্রামের আবুল মিয়া, আনারসি গ্রামের জমির আলী, রহিমখারচকের মা্সুক মিয়া, পাঠানচকের শামীম আহমদ, আব্দুল কাদির জানান, সুপারি কিনে সিলেটসহ ঢাকা, রংপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, সৈয়দুপুর, দিনাজপুরের আড়ত সমূহে বিক্রি করেন। বাহিরের ক্রেতারা জকিগঞ্জ আসার পর থেকে সুপারির দাম অনেকটা বেড়ে গেছে। ব্যবসায়ীরা জানান, জকিগঞ্জ বাজারের রবি ও বৃহস্পতিবারে অন্তত কোটি টাকার সুপারি কেনেন তারা। দুই বা তিনদিন পর পর বড় ট্রাক দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। বর্তমানে প্রতি বি (৪০ ঘা) সুপারির দাম সর্বনিম্ন ৭০০-৮০০ এবং সর্বোচ্চ ১২০০-১৩০০টাকা বলে জানান ক্রেতারা। তারা বলেন সিলেটের সব চেয়ে বড় বাজার এবং ফলনও বেশি হয় জকিগঞ্জে।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.