মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
দপ্তরী কাম নৈশপ্রহরী নিয়োগ নিয়ে যা বললেন জকিগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান  » «   আবুল হোসেন আইডিয়াল একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা স্মরণে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল  » «   জকিগঞ্জে ইয়াবাসহ নারী আটক  » «   জকিগঞ্জের দপ্তরী নিয়োগ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন; পুলিশের বাঁধা  » «   জকিগঞ্জে প্রতিবন্ধিদের মধ্যে ক্র্যাচ বিতরণ  » «   জকিগঞ্জে পল্লী চিকিৎসকদের কমিটি গঠন  » «   জকিগঞ্জ বনাম বিশ্বনাথের খেলা ২১অক্টোবর; খেলোয়াড় বাছাই ১৭অক্টোবর  » «   জকিগঞ্জে দুর্গাপূজা শুরু, ৯৮টি পূজা মন্ডপে ৪৮টন চাল বিতরণ  » «   জকিগঞ্জসহ সারাদেশে প্রাইমারী দপ্তরী নিয়োগ স্থগিত করলেন মন্ত্রী  » «   শিলচরে বাংলাদেশী বন্দিদের খোঁজ নিলেন ডেপুটি হাই কমিশনার  » «  

শিলচর ওপেনে বাংলাদেশের দুই দাবাড়ু

পুরস্কার বিতরণ পর্বে আরবিটার সরজিৎ নাথের সঙ্গে সাজ্জাদ ও মাহিন।

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলচর : আসামের শিলচরে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হল শিলচর ওপেন ইন্টারন্যাশনাল দাবা প্রতিযোগিতা। ফিডের এই রেটিং আসরে বাংলাদেশ থেকে দুজন রেটিংপ্রাপ্ত দাবাড়ু অংশগ্রহণ করেন। তাঁদের একজন কিশোর সাজ্জাদ এবং অন্যজন নুরুল ইসলাম মাহিন। সোমবার শেষ হওয়া আসরে সাজ্জাদ সম্ভাব্য সর্বোচ্চ দশের মধ্যে সাত পয়েন্ট নিয়ে শেষ করেন। মাহিন পেয়েছেন ছয় পয়েন্ট। তবে উভয়েই এই আসরে অংশ নিতে পেরে বেশ খুশি।
সাজ্জাদ জানান, বাংলাদেশে দাবা নিয়ে চর্চা বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। ইতিমধ্যে দেশটি পাঁচজন গ্র্যান্ডমাস্টার পেয়েছে। তাঁরা হলেন নিয়াজ মুরশেদ, জিয়াউর রহমান, রিফাত বিন সাত্তার, রাকিব এবং রাজীব। কিছুদিনের মধ্যে ফাহাদও পেয়ে যাবেন গ্র্যান্ডমাস্টার নর্ম।


সাজ্জাদ অবশ্য নিজের সম্পর্কে খুব বেশি আশাবাদী নন। এর কারণ হল ইতিমধ্যে বয়স হয়ে গেছে ৪৫। ইন্টারন্যাশনাল মাস্টার নর্ম এখনও পাননি। সেটা পাওয়ার পরবর্তী ধাপ হল গ্র্যান্ডমাস্টার। ঢাকার এই দাবা খেলোয়াড় যতটুকু সম্ভব রেটিং পয়েন্ট এগিয়ে নিতে চান। এখন সাজ্জাদের রেটিং পয়েন্ট ১৭৩২। মাহিনের ১৭১৩। সাজ্জাদ এর আগে সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, ভারতের মুম্বাই, কলকাতা, উড়িষ্যা সহ বিভিন্ন জায়গায় খেলেছেন। কাছাড় জেলা দাবা সংস্থা আয়োজিত এই আসর শেষে বাংলাদেশের দুই দাবাড়ু নেপাল রওয়ানা হয়ে গেছেন। সেখানে আরেকটি প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন তাঁরা।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

Developed by:

.