মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
সড়ক সংস্কার বিষয়ে যা বললেন ইউএনও-সিএন্ডবি কর্মকর্তারা  » «   জকিগঞ্জ-বটরতল সড়ক সংস্কার কাজ শুরু না হওয়ায় তীব্র ক্ষোভ  » «   বারঠাকুরী ও কসকনকপুর ইউপি ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক প্রাথীদের জীবন বৃত্তান্ত আহ্বান  » «   উত্তরকুল মোশাহিদীয়া দাখিল মাদ্রাসা তালামীযের কমিটি গঠন  » «   তালামীযের জকিগঞ্জ পৌরসভা শাখার কমিটি গঠন  » «   গঙ্গাজল (ক) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিড ডে মিল চালু  » «   বারঠাকুরী ইউপি সদস্য সুনাম আহমদের দাফন; এলাকায় শােকের ছায়া  » «   ফেসবুক জুড়ে ইকবাল তালুকদারের মৃত্যুর স্ট্যাটাস  » «   ইকবাল তালুকদারের ইন্তেকাল; জকিগঞ্জে শােকের ছায়া  » «   ঢাকায় মি’রাজুন্নবী সা. উপলক্ষ্যে আলোচনা ও মিলাদ মাহফিল  » «  

মোবাইলে পরিচয়, বিয়ে হয় ২০১৪ সালে

বলব-768x399

২০১০ সালে বন্ধুর মাধ্যমে মোবাইল ফোনের নম্বর আদানপ্রদান। এরপর নাসরিন সুলতানার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন ক্রিকেটার আরাফাত সানি। দীর্ঘ সময়ে অনেক ঘোরাঘুরির মধ্যে অন্তরঙ্গতাও বাড়ে দুজনের। প্রেমের টানে ২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর পরিবারের অজ্ঞাতে বিয়েও করেন তারা। কিন্তু মেয়েকে ঘরে তুলে নেননি আরাফাত সানি। বলে-কয়েও ঘরে উঠতে পারেননি নাসরিন।
এখানেই শেষ নয়। অনেকবার নাসরিন দুই পরিবারকে বিয়ের বিষয়টি জানিয়ে ঘরে তোলার জন্য চাপ দিতে থাকেন। কিন্তু আরাফাত সানি নানা অজুহাতে কালক্ষেপণ করতে থাকেন।

চলতি বছরের শুরুতে নাসরিনের পরিবার থেকে তাকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়া শুরু করে। কিন্তু আরাফাত সানির সঙ্গে আগেই বিয়ে হওয়ার বিষয়টি জানতো না পরিবার। এরপর নাসরিন সুলতানা আবারো সানিকে পারিবারিকভাবে ঘরে তুলে নেয়ার অনুরোধ জানান। তাতেও কাজ না হওয়ায় বিয়ের সম্পর্ক ছিন্ন করারও প্রস্তাব দেন নাসরিন।

কিন্তু আরাফাত সানি তা না করে উল্টো গত ৬ ডিসেম্বর নাসরিন সুলতানার নামে ফেসবুকে একটি ফেক আইডি খুলে সেটা থেকে নিজেদের অন্তরঙ্গ ছবি পাঠিয়ে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করেন। নানাভাবে হুমকিও দেয়া হয় তাকে। এরপরই পুলিশের আশ্রয় নেন নাসরিন সুলতানা। মামলার এজাহার সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ ব্যাপারে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার জানান, গত ৫ জানুয়ারি নাসরিন সুলতানা ক্রিকেটার আরাফাত সানির বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা (মামলা নং ১১) করেন। সানির সঙ্গে তার বৈবাহিক সম্পর্ক রয়েছে। এর স্বপক্ষে প্রমাণস্বরূপ নাসরিক সুলতানা গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রও দিয়েছেন। তাছাড়া তথ্য-প্রযুক্তির মাধ্যমে আমরা অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতাও পেয়েছি।
প্রাথমিক তদন্তে সানির সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়ার পরই রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আমিনবাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান ডিসি বিপ্লব। সানিকে এখন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইয়াহিয়া বলেন, সানিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ডে চাওয়া হবে।
তবে আরাফাত সানিকে গ্রেফতার করে মোহাম্মদপুর থানায় নিয়ে আসার পর মা নার্গিস আক্তার থানায় উপস্থিত সাংবাদিকদের অভিযোগ করেন, তার ছেলেকে ফাঁসানো হচ্ছে। পুলিশের যোগসাজশে নাসরিন আফারাত সানিকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে। সানির বিরুদ্ধে করা অভিযোগ খতিয়ে দেখার আগে নাসরিনের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো তদন্ত করে দেখার দাবি জানান তিনি।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.