শনিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
নানা আয়োজনে জকিগঞ্জ টিভি’র প্রথম বর্ষপূর্তি উদযাপন  » «   জকিগঞ্জ কানাইঘাট আসনে মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন ইকবাল আহমদ  » «   দুই বছরে পা রাখছে জকিগঞ্জ টিভি  » «   আমেরিকা প্রবাসী যুবলীগ নেতা মিজান চৌধুরীর জন্মদিন উদযাপন  » «   শাহগলী আদর্শ শিশু বিদ্যানিকেতন এর ৫ম শ্রেণীর পরীক্ষার্থীদের বিদায়  » «   এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষার্থীদের জন্য তারুণ্য ছাত্র ঐক্যের ফ্রি কোচিং শুরু ২১নভেম্বর  » «   জকিগঞ্জ পৌরসভা ও সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের মিছিল  » «   বিরশ্রীর বিশিষ্ট মুরব্বী হাজী আব্দুর নূরের দাফন  » «   লন্ডন প্রবাসী, মাওলানা ফখরুল ইসলাম ট্রাস্টের বৃত্তি পরীক্ষা আগামীকাল  » «   জকিগঞ্জ কানাইঘাট আসনে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করলেন ইকবাল আহমদ  » «  

মালয়েশিয়ায় শ্রমিকদের জন্য রি-হায়ারিং করার সময় বাড়লো।

সুত্র, বাংলানিউজঃ-  অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী বাংলাদেশি শ্রমিকদের রি-হায়ারিংয়ের সময়সীমা শেষ হচ্ছে চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর। তবে বাংলাদেশের কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় তা আরও ছয়মাস বাড়তে পারে বলে আশা প্রকাশ করেছেন কর্মকর্তারা।

বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তারা বলছেন, মালয়েশিয়ায় কর্মীদের রি-হায়ারিংয়ের সময় যাতে আরও ছয় মাস বাড়ানো হয়-হাইকমিশনের পক্ষ থেকে সে চেষ্টা অব্যাহত আছে। এরই মধ্যে এ বিষয়ে কূটনৈতিক তৎপরতাও বেশ এগিয়েছে।

কুয়ালালামপুরের বাংলাদেশ হাইকিমশন ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এমনটা জানা গেছে।

সূত্র বলছে, মালয়েশিয়ায় অবৈধ নাগরিকদের চিহ্নিতকরণ ও তাদের বৈধ হবার কর্মসূচিই হচ্ছে রি-হায়ারিং। যা চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে। যারা বৈধভাবে প্লেনে বা ইমিগ্রেশন পেরিয়ে মালয়েশিয়ায় ঢুকেছিলেন শুধু তাদের জন্যই এ কর্মসূচি হচ্ছে।

এর মধ্যে যারা সমুদ্রপথে কিংবা অন্যান্যভাবে অবৈধ পথে মালয়েশিয়ায় এসেছেন তারা সুযোগ পাচ্ছেন না। তাদের জন্যে আলাদা প্রোগ্রাম ই-কার্ড চালু করেছে মালয়েশীয় সরকার।

কুয়ালালামপুরে বাংলাদেশ হাইকমিশনের এক কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বলেন, ‘পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ৩১ ডিসেম্বর মেয়াদ শেষ হলেও তা আরও ৬ মাস বাড়ানোর জন্য হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম কূটনৈতিকভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আশা করি মেয়াদ বাড়বে।’

তবে সতর্ক করে তিনি এও বলেন, ‘এখনও এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তাই সবাই যেনো ৩১ ডিসেম্বরের আগেই নথিভুক্ত হন।’

এর আগে ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে কুয়ালালামপুর সফরের সময় দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাসরত বাংলাদেশি কর্মীদের বৈধতা দিতে মালয়েশীয় সরকারকে অনুরোধ জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরবর্তীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও হাইকমিশনের কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফলে বসবাসরত অবৈধ কর্মীদের বৈধতা দিতে ২০১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে রি-হায়ারিং কর্মসূচি চালু করে দেশটির সরকার। প্রথমে এর মেয়াদ ছিল ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত।

পরে হাইকমিশনের কূটনৈতিক প্রচেষ্টা ও শ্রমবাজারের চাহিদা বিবেচনায় নিয়ে দেশটির সরকার তা ওই বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ায়। এরপর আবারও কূটনৈতিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে তা ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

Developed by:

.