সোমবার, ১৮ জুন, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
সোনাপুর-সুপ্রাকান্দি ডেভল্যাপমেন্ট সোসাইটির ঈদ সামগ্রী বিতরণ  » «   কাতারে জকিগঞ্জের আব্দুল মুহিম মিনুর মৃত্যু  » «   জকিগঞ্জে ১৩০বোতল অফিসার চয়েজসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক  » «   শাহ মোঃ ফয়ছল চৌধুরী কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন  » «   বৃহত্তর আটগ্রাম প্রবাসী সমাজ কল্যাণ পরিষদের ঈদ সামগ্রী বিতরণ  » «   প্রতিবন্ধী ও দরিদ্রদের মধ্যে স্পেন প্রবাসী মাসহুদের ইফতার  » «   ইউএনও শহীদুল হকের ইন্তেকালে এইচটিএ সেবা ফাউন্ডেশনের শোক  » «   জকিগঞ্জে এমপি প্রার্থী এম জাকির হোসাইনের সমর্থনে ইফতার  » «   জকিগঞ্জের সাবেক ইউএনও শহীদুল হকের দাফন  » «   জকিগঞ্জ-সিলেট সড়ক দ্রুত সংস্কার করুন, অ্যাড. মোশতাক  » «  

মানুষের চোখ ৫৭৬ মেগাপিক্সেল!

390304_120587

সৃষ্টি বড়ই অদ্ভূত। পৃথিবী জুড়ে এমন অনেক কিছুই রয়েছে, যেগুলি সম্পর্কে ন্যূনতম কোনো ধারণাই আমাদের নেই। বেশি দূরে যেতে হবে না। ঘর হতে শুধু দুই পা ফেলিয়াই যে কত সৃষ্টি, কত ঘটনা এদিক-ওদিক ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে, তা-ই অনেক সময় আমাদের গোচরে আসে না। আজ পাঠকদের জানাব মানবদেহ সম্পর্কেই অবাক করা ৫টি তথ্য। জানেন কি, আপনি একজন সুপারহিরো। প্রত্যেকটা মানুষই ১০টা সুপার পাওয়ার নিয়ে জন্মায়। নিজেদের সেই ক্ষমতা সম্পর্কে আমরা নিজেরাই অনেকে অবগত নই। তাহলে জানা না থাকলে জেনে নিন।

১. মানুষের মস্তিষ্ক বিদ্যুৎ উৎপাদক: নিউরন আমাদের মস্তিষ্কে বার্তা পাঠায়। সেই সময়ই বেশ কিছুটা বিদ্যুৎ উৎপন্ন করে সেটি। মস্তিষ্কে তৈরি হয় প্রায় ২০ ওয়াট বিদ্যুৎ। এই পরিমাণ বিদ্যুৎ দিয়ে জ্বালানো যেতে পারে ছোট টিউব বা ডিম লাইট।

২. ইস্পাতের থেকে শক্ত মানবদেহের হাড়: জানেন কি, মানুষের শরীরের হাড় অনেক শক্ত জিনিসের থেকেও বেশি শক্তিশালী। নিশ্চয়ই ভাবছেন ঠিক কতটা শক্ত আমাদের হাড়? ইস্পাতের থেকে ৫ গুণ বেশি শক্ত।

৩. মানুষের চোখ আসলে ৫৭৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা: দিনরাত তো কোন ফোনের ক্যামেরা কত মেগাপিক্সেল, তা নিয়েই মেতে রয়েছেন। ৮ থেকে ৪১ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার ফোন বাজারে এসেছে। আর যদি ডিএসএলআর ক্যামেরার কথা বলেন, তবে তার ক্ষমতা ১২০ মেগাপিক্সেল। কিন্তু, একবারও ভেবে দেখেছেন যে,  আপনার কাছেই রয়েছে বিশ্বের সর্বশক্তিমান ক্যামেরা! মানুষের চোখই আসলে ৫৭৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সেজন্যই আমরা প্রায় ১ কোটি রঙ আলাদা ভাবে দেখতে পাই।

৪. মুখের ভাব পরিবর্তন করেই মুড পাল্টানো: বিজ্ঞান আমাদের দেখিয়ে দিয়েছে, নির্দিষ্ট কোনো মানসিক অবস্থার আবেগ ও ভাবনাচিন্তার থেকে অনেক বেশি শক্তি রাখে মুখের অভিব্যক্তি। সঙ্গে সঙ্গে না হলেও, এটা কাজ করে ধীরে ধীরে।

৫. হঠাৎ কিছু করতে অ্যাড্রিনালিনের ছুটোছুটি: কোনো অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টস বা অস্বাভাবিক কোনো কাজের ক্ষেত্রে শরীরে বয়ে যায় অ্যাড্রিনালিন স্রোত। এটিই সেই কাজ করার জন্য শরীরকে বাড়তি শক্তি জোগায়। যেমন, ধরুন জাম্পিং, স্কাই ডাইভিং বা রেসিং-এর সময় শক্তির এই উৎসই সাফল্যের দোরগোড়ায় এনে দেয়। অনেকে অবশ্য স্বাভাবিক দক্ষতার থেকে বাড়তি কোনো সাফল্য পাওয়ার জন্য অনেক সময় শক্তিবর্ধক ইনজেকশন শরীরে প্রয়োগ করেন।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.