শনিবার, ২৬ মে, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
জকিগঞ্জে বৃহত্তর খলাছড়া প্রবাসী কল্যান সংস্থার আহবায়ক কমিটির আত্মপ্রকাশ  » «   জকিগঞ্জ বিদ্যুতের অভিযোগ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ  » «   পাঠানচক প্রবাসী জনকল্যাণ সংস্থার কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা ও দরিদ্রদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠান শনিবার  » «   প্রতিবন্ধী ও দরিদ্রদের মধ্যে জকিগঞ্জ এইচটিএ সেবা ফাউন্ডেশনের চাল বিতরণ  » «   সিলেট তিব্বিয়া কলেজের প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর, জকিগঞ্জের সন্তান আব্দুর রবের ইন্তেকাল  » «   দূর্ঘটনায় নিহত জকিগঞ্জের সালমান আহমদ সুমনের দাফন  » «   দরিদ্র, প্রতিবন্ধীদের নিয়ে জকিগঞ্জ এইচটিএ সেবা ফাউন্ডশনের ইফতার  » «   বারহাল ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন  » «   জকিগঞ্জে ফার্মাসিউটিকেলস রিপ্রেজেন্টেটিভ এসো: কমিটি গঠন  » «   বাসের ধাক্কায় জকিগঞ্জের সুমনের মর্মান্তিক মৃত্যু  » «  

ভ্রাতৃত্ববোধ মনুষ্যত্বের পরিচয়

মাওলানা দৌলত আলী খান : সামাজিক জীবনে ভ্রাতৃত্বের গুরুত্ব অপরিসীম। কারণ মানুষ সামাজিক জীব। মিলেমিশে সমাজে বসবাস করা ছাড়া কারও ভিন্ন উপায় নেই। কাজেই পারস্পরিক ভ্রাতৃত্ববোধ সব ধরনের হিংসা-বিদ্বেষ, হানাহানি, শত্রুতা ও আত্মকোন্দল বিদূরিত করে সমাজকে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ উপহার দেয়। এ প্রসঙ্গে নবী করিম (সা.) বলেন, ‘মুসলমানদের পরস্পর ভালোবাসা, দয়া-অনুগ্রহ একটি দেহের মতোই। তার একটি অঙ্গে ব্যথায় কাতর হলে, সারা দেহটাই অনিদ্রা এবং জ্বরে আক্রান্ত হয়ে পড়ে।’ (বোখারি : ৬০৭৯; মুসলিম : ৬৭৫১)। আরও এরশাদ হয়েছে, ‘একজন মোমিন আরেকজন মোমিনের জন্য একটি গৃহের মতো, যার একাংশ অপরাংশকে সুদৃঢ় রাখে। অতঃপর তিনি এক হাতের আঙুলগুলো অপর হাতের আঙুলের মধ্যে প্রবিষ্ট করলেন।’ (বোখারি : ৬০৯৫)।
ভ্রাতৃত্বের আরেকটি দাবি হচ্ছে মুসলমানরা পারস্পরিক কথায় ও কাজে অপরকে কষ্ট দেবে না, সম্পদ ও সম্মান বিনষ্ট করবে না। রক্তপাত করবে না। শুধু আল্লাহর সন্তুষ্টির লক্ষ্যে একে অপরকে ভালোবাসবে। এ মর্মে রাসুল (সা.) বলেন, ‘আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, যারা আমার সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশে পরস্পরকে ভালোবাসে, আমার উদ্দেশে পরস্পর মিলিত হয়, আমার উদ্দেশে পরস্পর সাক্ষাৎ করে এবং আমার উদ্দেশে নিজেদের মাল-সম্পদ ব্যয় করেÑ আমার ভালোবাসা তাদের জন্য অবধারিত।’ (মেশকাত : ৪৭৯২)।
তিনি আরও বলেন, ‘যে ব্যক্তি আমার উম্মতের কারও অভাব পূরণ করবে, এতে তার উদ্দেশ্য হলো ওই ব্যক্তিকে সন্তুষ্ট করবে, প্রকৃত পক্ষে সে আমাকে সন্তুষ্ট করল। আর যে ব্যক্তি আমাকে সন্তুষ্ট করল, সে প্রকৃতপক্ষে আল্লাহকে সন্তুষ্ট করল। আর যে ব্যক্তি আল্লাহকে সন্তুষ্ট করল, আল্লাহ তায়ালা তাকে বেহেশতে প্রবেশ করাবেন।’ (মেশকাত : ৪৭৭৯)।
সমাজে বসবাসকারীদের মাঝে যদি ভ্রাতৃত্বের বন্ধন না থাকে, তাহলে সমাজে শান্তি, শৃঙ্খলা ও অগ্রগতি দারুণভাবে বিঘিœত হয়। সমাজ থেকে ইসলাম ও তার আদর্শ দিনে দিনে মুছে যেতে থাকে। ফলে সমাজ ও সমাজের মানুষ অরাজকতার শিকার হয়। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘যারা মোমিনদের মাঝে অশ্লীলতা ছড়াতে পছন্দ করে তাদের জন্য রয়েছে দুনিয়া এবং আখেরাতের যন্ত্রণাদয়ক আজাব।’ (সূরা নূর : ১৯)।
রাসুল (সা.) বলেন, ‘কোনো মুসলমানের জন্য এটা জায়েজ নয় যে, তিন দিনের বেশি তার কোনো মুসলমান ভাইয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করে। সুতরাং যে ব্যক্তি তিন দিনের বেশি সম্পর্ক ত্যাগ করে মারা যায়, সে দোজখে প্রবেশ করবে।’ (আবু দাউদ : ৪৯১৬)।
নবীজি (সা.) আরও বলেন, ‘যে ব্যক্তি তার কোনো মুসলমান ভাইয়ের সঙ্গে ১ বছর সম্পর্ক ছিন্ন রাখল, তখন ওটা তার রক্তপাত করারই নামান্তর।’ (আবু দাউদ : ৪৯১৭)।
সুতরাং একজন মুসলমানের দুঃখ-কষ্টে, বিপদ-আপদে অপর মুসলমানকে এগিয়ে আসতে হবে। এভাবে আদর্শ পরিবার ও সভ্য সমাজ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হবে। এ প্রসঙ্গে রাসুল (সা.) বলেন, ‘মুসলমান মুসলমানের ভাই, সে তার ওপর জুলম করবে না এবং তাকে ধ্বংসের দিকে ফেলে দেবে না। যে ব্যক্তি তার ভাইয়ের অভাব মোচনে সাহায্য করবে, আল্লাহ তায়ালা তার অভাব মোচনে সাহায্য করবেন। যে ব্যক্তি কোনো মুসলমানের দুঃখ-কষ্ট দূর করবে, আল্লাহ তায়ালা কেয়ামতের দিন তার বিপদগুলোর কোনো একটি বড় বিপদ দূর করে দেবেন। আর যে ব্যক্তি কোনো মুসলমানের দোষ-ত্রুটি ঢেকে রাখবে, আল্লাহ তায়ালা কেয়ামতের দিন তার দোষ-ত্রুটি ঢেকে রাখবেন।’ (বোখারি : ২৪৮২; মুসলিম : ৬৭৪৩)।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.