শুক্রবার, ২৩ জুন, ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজার পৌরসভায় কে হচ্ছেন মেয়র?

27newspic2017__006

আবু তাহের রাজু, বিয়ানীবাজার ::
দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর গত মঙ্গলবার বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও মেয়র, ১ নম্বর সংরক্ষিত এবং ৩ নম্বর সাধারণ কাউন্সিলর পদে ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি। ৩ নম্বর ওয়ার্ড কসবা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রের ফলাফল বাতিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে কেন্দ্রের ভেতর ও বাইরে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ এবং ব্যাপক জাল ভোট ও কারচুপির অভিযোগ থাকায় নির্বাচন কমিশন এ কেন্দ্রের ফলাফল বাতিল করেছে। এ কেন্দ্রে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের আলোকে আগামীতে ভোটগ্রহণ করা হবে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মনির হোসেন।

কসবা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রের পুনরায় ভোটে নির্ধারিত হবে বিয়ানীবাজার পৌরসভার প্রথম মেয়র কে হচ্ছেন? যদিও প্রকাশিত ৯টি কেন্দ্রের ফলাফল অনুযায়ী বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী আবুনাসের পিন্টু ১২০ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন। তবে ৩ নম্বর ভোটকেন্দ্র আওয়ামী লীগের দুর্গ বলে পরিচিত। এই কেন্দ্রটি কসবা এলাকার মধ্যে হওয়ায় পুনরায় ভোটের আব্দুস শুকুরকে এগিয়ে রাখছেন পৌরবাসী। তাই আওয়ামী লীগ শিবিরের আনন্দের বন্যা বইছে। তাঁর সমর্থকরা তাকে পরবর্তী মেয়র দাবি করে ফেসবুক সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন।
১০টি কেন্দ্রের মধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তা মনির হোসেন ৯টি কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা করেন। ঘোষিত ফলাফলে ধানের শিষ প্রতীক নিয়ে বিএনপি আবু নাসের পিন্টু ৩ হাজার ৬২৫, নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের আব্দুস শুকুর ৩ হাজার ৪৭১ এবং জগ প্রতীক নিয়ে বর্তমান পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেন পেয়েছেন ৩ হাজার ৩০৪টি ভোট, মোবাইলফোন প্রতীকের আবুল কাশেম পল্লব ২ হাজার ১৮০, রেল প্রতীকে জমির হোসাইন ৬৯৮, কম্পিউটার প্রতীকে আমান উদ্দিন ২৪, নারিকেল প্রতীকে বদরুল হক ১২, মশাল প্রতীকে শমসের আলম ৩৬ ভোট পেয়েছেন। বাতিল হওয়া কসবা আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটার হচ্ছেন ৩ হাজার ৩৮৮ জন।
পাশাপাশি বিএনপি ৩ নম্বর ওয়ার্ডের পাশাপাশি ২ নম্বর এবং ৪ নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করলেও ঘোষিত ফলাফলে তাঁরা এগিয়ে থাকায় নিজেদের প্রার্থীকে মেয়র পদে বিজয় বলে ধরে নিয়েছেন। ঠিক বিপরীত চিত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী তফজ্জুল হোসেনের শিবিরে। তিনিও নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছেন। ঘোষিত ফলাফলে তাঁর অবস্থান ধানের শিষ ও নৌকার পেছনে থাকায় সমর্থকদের মধ্যে হতাশা ভর করেছে। নবনির্বাচিত মেয়র পেতে এখন পৌরবাসীর অপেক্ষা ৩ নম্বর ওয়ার্ডে নির্বাচনের দিন পর্যন্ত।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.