মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
জকিগঞ্জের মানিকপুরে জেলা প্রশাসকের মতবিনিময়  » «   বিরশ্রীর বড়চালিয়ায় ২৪, ২৫ ও ২৬জানু. সংকীর্তন মহোৎসব  » «   এবার জকিগঞ্জে বিধবার পাকাঘর মাটিতে মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে  » «   হাড়িকান্দি মাদ্রাসায় গোটারগ্রাম প্রবাসী সংস্থার ১লক্ষ টাকা অনুদান  » «   বৃদ্ধ চাচাকে নির্যাতনকারি ছুবহান সহ ৪জন কারাগারে, জকিগঞ্জ বার্তাকে অ্যাডিশনাল এসপি  » «   সিলেটে শ্রেষ্ঠ হলেন জকিগঞ্জ সার্কেল এর অ্যাডিশনাল এসপি  » «   শতবর্ষী চাচাকে নির্যাতনকারি সেই ভাতিজা আটক  » «   সেই শিশুর পাশে জকিগঞ্জ প্রবাসী সমাজকল্যাণ সংস্থা  » «   অমানবিক…..  » «   অসহায় মজলুম মানুষের খিদমতে নিজেকে উৎসর্গ করুন: আল্লামা ইমাদ উদ্দিন ফুলতলী  » «  

বিপিএলে উৎসবের রঙ-দর্শক ঢল ও প্রাসঙ্গিক কথন

সিদ্দিকুর রহমান সুমন: নভেম্বরের চতুর্থদিন। দুপুর গড়ানোর আগেই সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দর্শকের ঢল নেমেছিল। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের পঞ্চম আসরকে ঘিরে চারদিকে ছিল উৎসবের আমেজ। ঘরের মাঠে নিজেদের দল এবং প্রিয় খেলোয়াড়দের খেলা উপভোগের সুযোগ করে দিয়েছে বিসিবি। তাই হাজারো কষ্টে পাওয়া টিকেট নিয়ে মাঠমুখী নানা বয়সী ক্রিকেটপ্রেমীদের ¯্রােত। যদিও টিকেট নিয়ে নানা অনুযোগ ও প্রতিক্রিয়া ছিল নগরজুড়ে। অনেকে নির্ঘুম রাত আর দিনের পর দিন লাইনে দাঁড়িয়েও শেষপর্যন্ত টিকেট না পেয়ে হতাশ, ক্ষুব্ধ।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের পঞ্চম আসরের উদ্বোধনী দিনের চিত্র এটি। গত পাঁচদিনে এই চিত্রের কোন হেরফের হয়নি। প্রতিদিনই উপচেপড়া দর্শক। নতুন ভেন্যু, নতুন দলকে ঘিরে ক্রিকেটিয়ে উন্মাদনা চোখে পড়ার মতো। নিজ শহরে ঘরোয়া ক্রিকেটের এত বড় আসর এবারই প্রথম। মাশরাফি বিন মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকদের মতো দেশীয় তারকাদের পাশাপাশি উপুল থারাঙ্গা, মিসবাহ উল হক, রবি বোপারার মতো ভিনদেশী তারকাদের খেলা দেখার সুযোগ কিভাবে হাত ছাড়া করেন ক্রীড়াপাগল এই জনপদের দর্শকরা। যদিও ১৮ হাজার ধারণ ক্ষমতার স্টেডিয়াম সবার স্বপ্ন পূরণ করতে পারেনি। টিকেটে ভাগ বসেছে ফ্র্যাঞ্চাইজি, ব্রডকাস্ট পার্টনার, ভিআইপি, স্পন্সরদের। এর বাইরে প্রচুর পরিমাণে টিকেট কালোবাজারে চলে গেছে বলেও অভিযোগ। তাই নির্ধারিত মূলের ছয়-সাতগুণ বেশি টাকা দিয়েও টিকেট পাননি অনেকে।

সিলেটের ক্রীড়াপাগল মানুষগুলো বছরের পর বছর বড় কোন ম্যাচ দেখার সুযোগ পান না। মাঝে মধ্যে যখন সুযোগ আসে তখন তা হাত ছাড়া করতে চাননা কেউই। আর বিপিএল’র ৫ম আসরে এসে নিজেদের মালিকায় প্রথমবার সিলেটও নিচ্ছে। তাই প্রত্যাশা ছিল আকাশছুঁয়া। যেভাবেই হোক একটি টিকিট কিনতে চেয়েছেন সবাই। তা করতে গিয়ে অনেকে পা দিয়েছেন অসাধু চক্রের ফাঁদে। বেশি টাকার বিনিময়ে তারা জাল টিকেট গছিয়ে দিয়েছে দর্শকদের হাতে। স্টেডিয়ামের প্রবেশপথে চেকিংয়ে জাল টিকেট ধরা পড়ায় একেবারে কাছে এসেও নিরাশ হয়ে ফিরে যেতে হয়েছে অনেককে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নম্বর গেইটের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নিরাপত্তাকর্মী।

দর্শকরাই মাঠের লক্ষ্মী। দর্শক যদি নাই থাকে তবে এই নান্দনিক স্টেডিয়াম, দৃষ্টিনন্দন গ্যালারী, খেলোয়াড়, খেলা সবই অসাড়, মূল্যহীন। টাকার বিনিময়ে নির্ঝঞ্জাটভাবে টিকেটটা হাতে পেতে চান দর্শকরা। নির্দোষ বিনোদনের জন্য তারা কেন কালোবাজারে টিকেট খোঁজবেন? কেন জাল টিকেট কিনে প্রতারিত হবেন? প্রশ্নটা ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের মনে উদয় হওয়া জরুরী। আর নিজেদের বিবেকের জায়গা থেকে উত্তরগুলোও খোঁজে নেওয়া আরও জরুরী। যদি চাহিদা বেশি থাকে সেটা আতংকের নয় আনন্দের বার্তা। আসন সংখ্যা বাড়ান, যাদের জন্য এতো আয়োজন এতো কিছু সেই দর্শকদের সুবিধার দিকে দৃষ্টি দিন। আর সিলেট ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম নামের সাথে এখন ইন্টারন্যাশনাল শব্দটা যুক্ত হয়ে গেছে। এখানে ম্যাচ হলে তার টিকেট বিপণন ব্যবস্থাও আন্তর্জাতিক মানের হওয়া চাই। আগামীতে এধরণের বিব্রত ঘটনা আর ঘটবে না নিশ্চয়ই। প্রথমবার বলে কিছু অব্যবস্থাপনাÑএটা বলে আপাতত হয়তো পার পাওয়া সম্ভব। কিন্তু বারবার সম্ভব?

লেখক : ব্যাংকার ও কলামিষ্ট

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

Developed by:

.