বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
স্বর্ণ পদক’ অর্জন করায় শাহবাগে শিহাব উদ্দিন সংবর্ধিত  » «   শাহগলী আদর্শ শিশু বিদ্যানিকেতনের সম্বর্ধনা অনুষ্ঠান বুধবার  » «   বারহালে আওয়ামীলীগ এর মতবিনিময় সভায় আলহাজ্ব মাসুক উদ্দিন আহমদ  » «   বারহা‌লে দি স্টু‌ডেন্ট ডে‌ভেলাপ‌মেন্ট ক্লাব(চক বুরহানপুর)এর ক‌মি‌টি গঠন   » «   জেলা পর্যায়ে মেধা বৃত্তি পেলেন জকিগঞ্জের ইছামতি কামিল মাদ্রাসার নয় মেধাবী শিক্ষার্থী  » «   জকিগঞ্জ উপজেলা উন্নয়ন পরিষদ ফ্রান্সের পক্ষ থেকে আলী রেজার পরিবারকে নগদ অর্থ প্রদান  » «   ওসিসি থেকে পালিয়ে যাওয়া সেই ভয়ংকর নারী প্রতারক পপি আটক  » «   মৌলভী ছাইর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন   » «   শাহগলী আদর্শ শিশু বিদ্যানিকেতনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী পালন  » «   বারহালে মাদক,সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আলোচনা সভা সম্পন্ন  » «  

প্রবাসীর বুকে কষ্টের অসহ্য যন্ত্রনা প্রবাসী ছাড়া আর কেউ বুঝবে না

fb_img_1457392947795-1
রায়হান আহমেদ তপাদার: তোমার দোয়ায় ভাল আছি"মা"।আমি সুখে আছি।দুঃখ-কষ্ট নেই কোন,শুনো মাগো শুনো,দুঃখ শুধু, নাই যে আমি তোমার কাছাকাছি।প্রবাস জীবনের সুখ-দুঃখের কথা লিখতে গেলেই মনটা কষ্টে ভরে উঠে,কলম যেন থেমে যেতে চায়,বুকের মধ্যখানে অজানা এক শূন্যতা আসন করে বসে,পুরনো স্মৃতির খাতার প্রতিটি পাতা নতুন করে চোখের সামনে ভেসে উঠে নিজের অজান্তে,চোখ থেকে অনাকাঙ্খিত কিছু জল ঝরে পড়ে।আর নিজেকে বড্ড একা মনে হয়।ভাগ্য পরিবর্তনের দৌড়-ঝাঁপ দিতে গিয়ে প্রবা সীরা কতবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয় আর কতবার বেঁচে উঠে তার হিসেব কে রাখে?প্রবাসীরা তাদের কষ্টের কথা সহজে প্রকাশ করেন না।তাই আমি অনেক গবেষণার মাধ্যমে লিখছি সারা বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা লক্ষ্য লক্ষ বাংলাভাষী প্রবাসীর হয়ে লিখছি।আমাদের প্রতি দিনের কষ্ট কাহিনী অনেকেই জানে না,বেশীর ভাগ সময় আমরা নিজেই প্রকাশ করতে সাচ্ছন্দ বোধ করি নাকারন কষ্টের কথা যন্ত্রনার কথা প্রকাশ করাও এক ধরনের কষ্ট।

আমাদের বুকের যন্ত্রনা প্রতিটি ক্ষন মূহুর্তে অন্তরে অন্তরে অবলীলায়আমাদেরকে কাঁদিয়ে যায়। আমাদের চোখের জল চোখেই শুকায়, কেউ আদর করে মুছে দেয়না।বেঁচে থাকার জন্য,ভালো থাকার অভিনয় করে নিজেই নিজের সাথে ছলনা করি।দেশের পরিবার পরিজন যাহাতে ভালো থাকতে পারে এই চিন্তা মাথায় রেখেই আমাদের কে অভিনয় করে হলেও সুখের হাসি হেসে বলতে হয় ‘আমি ভালো আছি মা, ভালো আছি বাবা’।একজন প্রবাসী আরো একজন প্রবাসীর সাথে যেভাবে জীবনের দুঃখ যন্ত্রনাভাগাভাগি করে আপন পরিবার পরিজনের সাথে এই ভাবে প্রান খোলে কথা বলতে পারেনা।কারন মাত্র একটা পিছনে রেখে আসা মানুষ গুলো সুখে থাকুক আমাদের কষ্টযেন ওদেরকে স্পর্শ করতে না পারে”দেশের মানুষ শুধুই আমাদের সুন্দর সাস্থ্যআর হাসি মাখা মুখটাই দেখে, তাই আসল সত্যটা হাসি আর চোখে দেখা সুখের আবরনে ঢাকাপড়ে যায়। আর এক ধরনের ভূ্ল ধারনা বদ্ধমূ্ল হয়।প্রবাসের বাস্তব চিত্র আমিযেভাবে দেখেছি তার সাথে দেশের মানুষের অনেক দ্বিমত থাকতে পারে, তবে যাদেখেছি তা কাগজ কলমের সাহায্যে আপনাদের কাছে প্রকাশ করার চেষ্টা করবো।তির্থের কাকের মত আশায় চেয়ে থাকা প্রবাসী জীবনের এক একটি দিন যা কাউকে সহজেবুঝাতে পারি না।

প্রবাসে টাকা আছে তবে সুখ যে নেই তা বিশ্বাসযোগ্য নয়। সবার ধারনা প্রবাসমানেই হলো সুখ আর সুখ। বাস্তব সত্য হলো আমরা নামে মাত্র শুধু বেঁচে থাকিতবে বেঁচে থাকার স্বাদ আমাদের ভাগ্যে নেই। ভালোবাসাহীন জীবন নিয়ে বুক ভরাকষ্টের পাহাড় নিয়ে সুখের আশে পাশেও যাবার ভাগ্য হয় না আমাদের। মাঝে মাঝেমনে হয় আমরা বেঁচে নেই যাকে বলে জিন্দা লাশ। আমরা প্রবাসীরাও এক একটাজিন্দা লাশ। যে সুখের আশায় রক্ত বাঁধনের মানুষ গুলোকে পিছনে রেখে একদূর পথপাড়ী দিলাম কিন্তু সুখের মুখ দেখা হলো না।বুক ভরা শুন্যতার শুন্যস্থান সঠিক ভাবে পুর্ণ হলোনা। কষ্ট আর হাহাকার বুকে নিয়ে সুখের আশায় বৃথা এই দৌড় ঝাঁপ দিতে দিতেই আমাদের জীবনে প্রদীপনিভে যায়।প্রবাসে কিছু মানুষ আছে যারা আমাদের মত অসুখী নয়, তাদের টাকাপয়সা সবই আছে তবে ওরা সংখ্যায় খুবই কম ওদের কথা আলাদা।আবার এই সুখীমানুষের অসুখের কাহিনীরও শেষ নেই।টাকা পয়সা সব সময় অসুখীর মূল বষ্য নয়।জীবনে টাকার প্রয়োজন তা আমি অস্বীকার করবো না, জীবনে টাকার প্রয়োজন আছে, জীবনকে সুন্দর ভাবে সাজাতে হলে টাকা অগ্রনী ভূমিকা পালন করে থাকে। টাকা যেআবার সব সমস্যার সমাধান তাও স্বীকার করবো না। যেখানে মানুষের প্রয়োজনসেখানে টাকা একেবারে অর্থহীন হয়ে যায়। জীবনে সুখী হবার জন্য হিসাবের কিছুবিষয় আছে আমাদের জ়ীবনে প্রতিফলিত না হলে আমরা সুখের মুখ দেখতে পাই না।প্রবাসীরা কোন সময় পরিপূর্ন সুখী হবার স্বপ্ন দেখে না।

প্রবাসী প্রতিবেদকঃএকজন মানুষ যখন এই পৃথিবী থেকে চিরদিনের মত হারিয়ে যায়, আমরা কিছুদিন কান্না কাটি করে এক সময় শান্ত হয়ে যাই। হারিয়ে যাওয়া সেই স্বজন বা পরিচিত মুখের কথা কোন এক সময় আমরা ভূ্লে যেতে পারি। চিরতরে হারিয়ে যাওয়া মানুষের কথা ভূ্লে যেতে যতেষ্ট সময় লাগে না। যারা এই পৃথিবী থেকে চলে যায় তাদেরকে ভূ্লে যাবার জন্য হৃদয় মন এক ধরনের প্রস্তুত হয়েই থাকে বলা যায়। ঠিক একই ভাবে আমরা যারা প্রবাসী আছি তাদের কথা দেশের মানুষ ভূ্লে যায়, প্রযোজন ছাড়া আমাদের সুখ দুঃখের কথা কেউ জানতে চায় না। জানি অনেকেই আমার এই লেখা পাঠান্তে কষ্ট পাবেন তবে বাস্তবকে অস্বীকার করার কোন উপায় নেই। নিজের অভিজ্ঞতা থেকে লিখছি, দেশের মানুষকে ছোট করার জন্য এই কথা গুলো লিখিনি প্রবাসীদের কষ্ট বুঝাবার জন্য লিখছি।গত পঁচিশ বছরের  প্রবাস  জীবনের অভিজ্ঞতা ও দুখের কথা আমাকে অনেক কিছু উপহার দিয়েছে।দেশ বিদেশের মানুষকে অনেক কাছে থেকে দেখার সুযোগ হয়েছে বলে এই কথা গুলো জানতে পেরেছি।একজন প্রবাসী যখন অকেজো হয়ে যায় তখনই পরিবার পরিজনের আসল রূপ প্রকাশ হয়, এর আগে নয়।

দুহাত ভরে যতদিন দেবার সামর্থ থাকবে ঠিক ততদিন পরিবারের সবার কাছে প্রিয়।আমাদেরকে সুখের মাইল ফলক হিশাবে দেখা হয়।দুঃখ কষ্ট যন্ত্রনা আমাদের নিত্যদিনের সংগি।খোলা চোখে যা দেখা যায় তা দিয়েই আমাদেরকে সুখি মানুষ হিশাবে গন্য করা হয়,অথচ আমাদের বুখে জনমের শুন্যতা।একাকীত্ব প্রবাসী জীবন আমাদেকে মৃত্যুর আগে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহন করতে বাধ্য করে,এই যন্ত্রনা কাউকে বুঝানো যায় না,কষ্টের পাহাড় বুকে ধরে রেখেছি আমরা।সুখটা কি শুধু কাড়ি কাড়ি টাকার মাঝেই সীমাবদ্ধ? কোন এক সময় আমিও তাই ভেবেছি যে টাকা পয়সা হাতে আসবে,নিজের মত করে জীবনকে সাজাবো,কষ্ট ভরা জীবনে আর কোন কষ্ট থাকবে না।সুখী সুন্দর একটা জীবনের জন্য টাকার প্রযোজনীয়তা অস্বী্কার করা যায় না তবে টাকাই যে সব সুখের মুলের মুল তা অনেকটা ভুল প্রমানিত হয়ে গেল। শুধু টাকা দিয়েই সুখী সুন্দর জীবন রচনা করা যায় না। আমার মত লক্ষ লক্ষ প্রবাসী এক বাক্যে এক মত হবেন, টাকাই সব সমস্যার সমাধান নয়।বিশেষ করে প্রবাসী জীবনের বাস্তবতা তো এই কথা বলে না।হাজার হাজার মাইল দূর থেকে দেখা স্বপ্নের সাথে আজকের এই প্রবাসের কোন যোগসূ্ত্র নেই।কল্পনা আর বাস্তবের মধ্যখানে আকাশ পাতাল ব্যাবধান,কল্পনার রাজ্যে বেহিসাবী হতে কোন বাধা নিষেধ নেই,স্বপ্ন দেখতে কোন টাকা পয়সা লাগে না তাই ইচ্ছেমত কল্পনার টাকার মাঝে জীবনের সব সুখ খুঁজেছি।টাকা পয়সা ছাড়া একটা সুতাও হয় না তাও জানি তবে টাকার মাঝেই যে সব সুখ লুকিয়ে থাকে তাও সত্য নয়।স্ব্পন আর বাস্তবের ব্যাবধান না বুঝে সংসারের জন্য একটু সুখ আর হাসি কিনতে গিয়েই আমাদের জীবনের প্রতিটি সুখ প্রবাসের মাটিতে কেঁদে কেঁদে মরে যায় যা কেউ জানতে পারে না।

প্রতিবছর তারা দেশে যে রেমিট্যান্স পাঠান,তা জিডিপির ৮ শতাংশের মতো।জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী,বর্তমানে বিভিন্ন দেশে প্রায় ৮০ লাখ বাংলাদেশি অবস্থান করছেন।তাদের সিংহভাগই শ্রমিক তাদের বেশির ভাগই মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে কাজ করেন।যুক্তরাষ্ট্রে আছেন এক লাখেরও কিছু বেশি বাংলা দেশি শ্রমিক একাকীত্বে্র বেদনায় আমাদের নয়নে যখন জল ঝরে কেউ আদর করে কাছে ডেকে এই জল মুছে দেয় না।নয়নের জল নয়নেই শুকায়।প্রবাসী যান্ত্রিক জীবনের সাথে যুদ্ধ করে আমরা প্রানে বেঁচে থাকি তবে এই বাঁচাকে বেঁচে থাকা বলা যায় না।আমাদের এই যান্ত্রিক জীবনের এক একটি মূহুর্ত অসম্ভব বেদনাদায়ক।এই কষ্ট বেদনা বিরহ সহ্য করে,আমাদেরকে নতুন ভাবে শক্তি সঞ্চয় করে,অনিচ্ছাকৃ্ত এই প্রবাস জীবনের সাথে সন্ধী করে বেঁচে থাকতে হয় কারন এক ঝাক ভালবাসার মানুষ আমাদের পানে চেয়ে আছে।আমাদের ত্যাগ আপনজন কে সুখী সুন্দর কিছু মূহুর্ত দিতে সক্ষম তা আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া তাই সব দুঃখ যন্ত্রনা ভূ্লে দায়িত্ব পালনে মরিয়া হয়ে উঠি।ভাইয়ের আবদার বোনের আবদার পূ্রন করতে গিয়ে নিজের পানে চেয়ে দেখার সময় থাকে না।মাসের শেষে দেশে টাকা পাঠাতে হয়, যতক্ষন বেঁচে থাকবো এই দায়িত্ব থেকে মুক্তির কোন উপায় নেই।অনেক সময় মাসের শেষে টাকা পাঠানো সম্ভব হয় না দেশ থেকে চিঠি আসে চিঠি ভর্তি শুধু কষ্টের কথা,প্রান হু হু করে কেঁদে উঠে ধার দেনা করে সংসারের শান্তি ফিরিয়ে আনতে হয় যা একমাত্র প্রবাসীরাই জানেন।

বহির্বিশ্বে ইমেজ পজেটিভ হচ্ছে,ধীরে ধীরে মাথা তুলছি আমরা।এটা যেমন সত্য তেমনি সত্য মাঝে মাঝে ধেয়ে আসা হতাশা আর ব্যর্থতার কালো মেঘ।প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রসঙ্গে স্বয়ংমন্ত্রীর হতাশাও তেমনি এক কৃষ্ণ মেঘের সঙ্কেত।আজকের বাংলাদেশ ও তার প্রবাসী জনগোষ্ঠী এক সূত্রে,একই নিয়তির টানে বাঁধা।পাল্টে যাওয়া অর্থনীতি ও সমাজ কাঠামোয় বাংলাদেশের অগ্র গতির অনেকটাই প্রবাসীদের রেমিটেন্সনির্ভর।অথবা বলা চলে কষ্টার্জিত বৈদেশিক মুদ্রা দেশে পাঠিয়ে এরা দেশের চাকাকে সচল রাখছেন,দিতে চাইছেন নতুন গতিবেগ।তাঁদের কথা মনে রেখেই এই মন্ত্রণালয়ের জন্ম।বর্তমান সরকারের কাজকর্মে লক্ষ্য,আদর্শ ও অগ্রগতির চিহ্নও বটে অথচ স্বয়ংকর্মকর্তাই এ বিষয়ে দুঃখ বা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
                                     রায়হান আহমেদ তপাদার
                                     raihan567@yahoo.co.uk

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

Developed by:

.