সোমবার, ২০ আগষ্ট, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
মৌলভী ছাইর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবস পালন   » «   শাহগলী আদর্শ শিশু বিদ্যানিকেতনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী পালন  » «   বারহালে মাদক,সন্ত্রাস ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আলোচনা সভা সম্পন্ন  » «   আটগ্রামে স্কুল ছাত্র সাজুর ইন্তেকাল  » «   আটগ্রামে সরকারি গোপাট উন্মুক্ত করতে ইউএনও বরাবরে অভিযোগ  » «   কালিগঞ্জ বাজারে একটি দোকানে দুর্ধর্ষ চুরি  » «   রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা কুন্টি মিয়ার দাফন সম্পন্ন  » «   জকিগঞ্জে ডিজিটাল কনটেন্ট বিষয়ে দিন ব্যাপি কর্মশালা  » «   নৌকার সমর্থনে মাসুক উদ্দিন আহমদের গণ সংযোগ  » «   ৯ইউপি ও ১পৌরসভায় ত্রাণ বিতরণ করবে জকিগঞ্জ সোসাইটি অব ইউএসএ ইন্ক  » «  

পবিত্র কাবার গিলাফ তিন মিটার উঁচুতে উঠানো হচ্ছে

ইসলাম: হজের মৌসুমে পবিত্র কাবা ঘরের গিলাফকে মাটি থেকে কিছুটা উঁচুতে উঠিয়ে রাখা হয়। চলতি বছরও সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে আগামী সপ্তাহে পবিত্র কাবা ঘরের পর্দা তিন মিটার উঁচুতে উঠিয়ে রাখা হবে।

পবিত্র কাবা ঘরের গিলাফ ‘কিসওয়া’ তৈরির কারখানার একজন পরিচালক কাবা শরিফের গিলাফ উঁচু করার কথা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

সৌদি আরবের আল রিয়াদ জানিয়েছে, স‍াম্ভাব্য ক্ষতি এড়ানোর জন্য এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। কারণ, অনেক হজপালনকারী পবিত্র কাবা ঘরের গিলাফ স্পর্শ করার আগ্রহ পোষণ করেন।

অনেকে বরকত মনে করে কাবার গিলাফের কিছু অংশ কেটে নেন। আবার অনেক হজযাত্রী কষ্ট করে হলেও ভীড় ঠেলে জীবন বিপন্ন করে গিলাফ স্পর্শ করে দোয়া-দরুদ পাঠ করার চেষ্টা করেন। ফলে অনেকের জন্য ত‍াওয়াফ করা কষ্টসাধ্য হয়ে উঠে।

তাই হজ মৌসুমে গিলাফটি তিন মিটার পর্যন্ত উপরে তুলে দেওয়া হয়, যেন কেউ তা স্পর্শ করার চেষ্টা না করে।

যদিও কাবার গিলাফ স্পর্শ করা বা এটা ধরে দোয়া-মোনাজাত করার আলাদা কোনো ফজিলত নেই। তার পরও দেখা যায়, অনেক হজযাত্রী কাবাঘরের দেয়াল স্পর্শ করতে এমনকি তাতে নিজের রুমাল, জামা কাপড় স্পর্শ করাতে। যদিও ধর্মীয় চিন্তাবিদরা এমন কাজ করা থেকে মানুষকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

এটা গিলাফের মূল অবয়ব রক্ষা ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য করা হয়। কাবার গিলাফটি মাটির দিক অর্থাৎ নীচের দিক থেকে তিন মিটার উঁচু পর্যন্ত ভাঁজ করে রাখা হয়। ভাঁজ করা অংশটুকু সাদা কাপড় দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়।

অবশ্য ৯ জিলহজ আরাফার দিন (হজের দিন) পুরনো এই গিলাফ পরিবর্তন করে নতুন গিলাফ লাগানো হবে।

পবিত্র কাবাঘরের গিলাফকে কিসওয়া বলা হয়। কিসওয়া তৈরির কারখানা মক্কা শরিফের উম্মুল জুদ এলাকায় অবস্থিত।

সূত্র: banglanews24.com

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.