শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
যথাযথ মর্যাদায় জকিগঞ্জে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ  » «   সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে জকিগঞ্জ উপজেলা ও পৌর বিএনপির কর্মী সভা  » «   শনিবার দিবারাত্রি বালাউটি ছাহেব বাড়ি ঈদে মিলাদুন্নবী (সা:) মাহফিল  » «   বাবুর বাজারের সন্নিকটে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ৩  » «   জকিগঞ্জে বিশিষ্ট মুরব্বী মঈন চৌধুরীর দাফন  » «   জকিগঞ্জের কুতুব উদ্দিন জেলা মাধ্য. শিক্ষক সমিতির সভাপতি হওয়ায় সংবর্ধনা  » «   পোষ্ট মর্টেম শেষে জকিগঞ্জের ফয়জুর রহমানের দাফন  » «   দি স্টুডেন্ট ডেভেলপমেন্ট ক্লাব(চক-বুরহানপুর)এর বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত  » «   মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে হাফিজ মজুমদার এর নির্বাচনী প্রচারণা শুরু  » «   জকিগঞ্জে আবারও নিখোঁজের পর মৃতদেহ উদ্ধার  » «  

নাগরীলিপি নিয়ে দুই বই-সিলেটি নাগরীলিপি সাহিত্যের ইতিবৃত্ত

উৎস প্রকাশন থেকে বের হয়েছে ‘সিলেটি নাগরীলিপি : সাহিত্যের ইতিবৃত্ত’ ও ‘নাগরীলিপি : নবজীবনের জার্নাল’ নামের দুটি বই। নাগরীলিপিবিষয়ক গবেষক ও লেখক মোস্তফা সেলিম বই দুটি লিখেছেন। বইগুলোতে নাগরীলিপির নানা ইতিহাস ও ঐতিহ্য উঠে এসেছে

বাংলা ও বাঙালির ইতিহাসের এক সন্ধিক্ষণে সমাজ-বাস্তবতার অনিবার্য প্রয়োজনে সিলেটি নাগরীলিপি, ভাষা ও সাহিত্যের উদ্ভব বিকাশ বিস্তৃতি। কালের অমোঘ নিয়মে ব্যবহারিক প্রয়োজন ফুরিয়ে যাওয়ায় এখন এটি প্রায় লুপ্ত। কিন্তু প্রায় পাঁচশ বছর ধরে এ লিপি চর্চার ভেতর দিয়ে আমাদের ভূগোলের একটি বৃহৎ অংশে যে ধর্মীয় সাংস্কৃতিক জ্ঞান ও সৃজনচর্চা চলেছেÑ এটি আমাদের ঐতিহ্যের এক অক্ষয় সম্পদ। বলা হয়, হজরত শাহজালাল ও তার শিষ্যদের হাতে সিলেট অঞ্চলে যে সুফিবাদী ইসলামের সূচনা হয়, তার বিস্তৃতির প্রয়োজনে এ ভাষার উদ্ভব। একদিকে ভিনভাষী ধর্মগুরু, অন্যদিকে অগণন সাধারণের ধর্মান্তরের ফলে উভয়ের ভাষিক সংযোগের জন্য যেমন একটি মিশ্রভাষার প্রয়োজন হয়, তেমনি এর লেখ্যরূপের দাবিতে দরকার হয় সহজ সরল বর্ণমালার। এটি প্রধানত বৃহত্তর সিলেটি জনগোষ্ঠীর প্রয়োজনে সৃষ্ট বলে নাম হয় সিলেটি নাগরী। প্রবাদ আছে, এমনকি গ্রামের নিরক্ষর নারীরাও এ বর্ণমালা মাত্র আড়াই দিনে শিখে বিভিন্ন পুঁথি সহজে পাঠ করতে পারতেন! এ ভাষায় রচিত হয়েছে শত শত পুঁথি, আখ্যান আর হাজারো গান; যা আজও বিপুল জনপ্রিয়।
এ ভাষা ও ঐতিহ্যের এক সঘন বর্ণনা পাই নাগরী গবেষক মোস্তফা সেলিমের সিলেটি নাগরিলিপি সাহিত্যের ইতিবৃত্ত বইয়ে। মোস্তফা সেলিম শুধু নাগরী গবেষক নন, বরং একযুগ ধরে নাগরীর দুর্লভ-দুষ্প্রাপ্য পা-ুলিপিগুলোর সম্পাদনা, প্রকাশ ও প্রচারে রীতিমতো যোদ্ধার ভূমিকায় অবতীর্ণ। তাই এ সময়ে নাগরীচর্চায় তিনি ও তার উৎস প্রকাশন প্রায় সমার্থ শব্দ। তিনি তার এ সাধনানির্যাসে পূর্বজ গবেষকদের পথ ধরে নাগরী সংস্কৃতির ইতিহাস যেমন তুলে ধরেছেন, পাশাপাশি এর সৃষ্টি ও স্রষ্টাদের যথাযোগ্য মর্যাদায় তুলে এনেছেন দৃষ্টান্তসমেত। আমাদের ভাষা-সাহিত্যের উপেক্ষিত এ অধ্যায়টি সম্পর্কে শুধু অজ্ঞতাই নয়, রয়েছে অনেক ভুল ধারণাও। মোস্তফা সেলিম তার বইটির ভেতর দিয়ে ইতিহাস-কর্তব্য পালন করে আমাদের চেতনাকেও জাগাতে চেয়েছেন।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

Developed by:

.