বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
হাফছা কলেজ ছাত্রী তানিয়া আক্তার ঝুমার বিষ পানে মৃত্যু  » «   প্রবাসীর মেয়ে ইসমত আরা বিসিএস ক্যাডার হতে চায়  » «   জকিগঞ্জ পৌর এলাকায় গ্যাসের সন্ধান; বাপেক্স কর্মকর্তাদের স্থান পরিদর্শন  » «   জকিগঞ্জে অমর একুশে বই মেলা শুরু  » «   হাজী আব্দুল আজিজ তাপাদার গার্লস একাডেমির শিক্ষা সফর  » «   বালাউট ছাহেব বাড়ি সংলগ্ন হাফিজিয়া মাদ্রাসার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন  » «   আলোর দিশারী সংস্থার পুরস্কার প্রদান ও সৌর বিদ্যুৎ লাইটের উদ্বোধন  » «   ২০১৯ সালের ১৪ ও ১৫ ফেব্রুয়ারী হাড়িকান্দি মাদ্রাসার শতবার্ষিকী পালন করা হবে  » «   ইছামতি কামিল মাদরাসার ৭২তম বার্ষিক মহাসম্মেলন আগামীকাল রবিবার  » «   নান্দিশ্রী ছাত্র কল্যাণ সংস্থার আত্মপ্রকাশ  » «  

কানাইঘাটে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক


কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ কানাইঘাটে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে প্রায় অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়েছেন। জানা যায়, উপজেলার বড়চতুল ইউপির হারাতৈল উপর বড়াই ও বাগেরআগন গ্রামের লোকজনের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। তবে বাগেরআগন গ্রামের পক্ষে সংঘর্ষে যোগ দেয় কাজিরপাতন গ্রামের লোকজন।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জলসার বাজারের দোকান বসানোকে কেন্দ্র করে উভয় গ্রামের হাজারো মানুষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) লুসি কান্ত হাজং ও কানাইঘাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসী ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, সোমবার স্থানীয় হারাতৈল মাদ্রাসার বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল ছিল। এ ওয়াজ মাহফিলে দোকান বসানো নিয়ে বাগেরআগন গ্রামের মুজম্মিল আলীর পুত্র বদরুল ইসলাম ও হারাতৈল গ্রামের জিয়াউল হকের পুত্র আবুল হোসেনের মধ্যে মারামারি হয়। এরই জের ধরে পরদিন মসজিদের মাইকে ডাক দিয়ে উভয় গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে উভয় পক্ষের প্রায় অর্ধশতাধিক আহত হন। এ ব্যাপারে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এনেছেন। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত কোন পক্ষ মামলা দায়ের করেনি।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.