শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
যথাযথ মর্যাদায় জকিগঞ্জে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ  » «   সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে জকিগঞ্জ উপজেলা ও পৌর বিএনপির কর্মী সভা  » «   শনিবার দিবারাত্রি বালাউটি ছাহেব বাড়ি ঈদে মিলাদুন্নবী (সা:) মাহফিল  » «   বাবুর বাজারের সন্নিকটে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ৩  » «   জকিগঞ্জে বিশিষ্ট মুরব্বী মঈন চৌধুরীর দাফন  » «   জকিগঞ্জের কুতুব উদ্দিন জেলা মাধ্য. শিক্ষক সমিতির সভাপতি হওয়ায় সংবর্ধনা  » «   পোষ্ট মর্টেম শেষে জকিগঞ্জের ফয়জুর রহমানের দাফন  » «   দি স্টুডেন্ট ডেভেলপমেন্ট ক্লাব(চক-বুরহানপুর)এর বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত  » «   মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে হাফিজ মজুমদার এর নির্বাচনী প্রচারণা শুরু  » «   জকিগঞ্জে আবারও নিখোঁজের পর মৃতদেহ উদ্ধার  » «  

ওমর মিয়াদ হত্যার অভিযোগে জকিগঞ্জের তোফায়েল আটক

সিলেটে ছাত্রলীগ কর্মী মিয়াদ হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগে জকিগঞ্জের সেনাপতিরচক গ্রামের ময়না মিয়ার পুত্র তোফায়েল আহমদকে আটক করেছে সিলেটের শাহপরাণ (র.) থানা পুলিশ। আজ বুধবার ভোরে ঢাকাস্থ শেরেবাংলা নগর জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় তাকে আটক করা হয়।

শাহপরাণ (র.) থানার ওসি আখতার হোসেন তোফায়েল আটকের তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ওমর আলী মিয়াদ হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত তোফায়েল আহতাবস্থায় পালিয়ে ঢাকায় হৃদরোগ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলো। বর্তমানে সে পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন আছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র দিলে তাকে সিলেটে নিয়ে আসা হবে।

উল্লেখ্য, নিহত মিয়াদ সিলেটের শহরতলীর বালুচর এলাকার আকুল মিয়ার ছেলে। সে লিডিং ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের ছাত্র ছিল। অন্যদিকে আটক তোফায়েল একই এলাকার বাসিন্দা।

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত সোমবার বিকেল সোয়া ৩টায় নগরীর টিলাগড়ে ছাত্রলীগের রায়হান চৌধুরী গ্রুপের সদস্য তোফায়ল ও হিরণ মাহমুদ নিপু গ্রুপের অনুসারীদের সংঘর্ষ হয়। এতে ছুরিকাঘাতে ওমর আলী মিয়াদ নিহত হন। আহত হন উভয় গ্রুপের কয়েকজন। এ ঘটনার পরপরই পুলিশ ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকা থেকে তোফায়েলের ভাই ফখরুল ইসলামকে আটক করে। তিনি ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ও সিলেট সিটি করপোরেশনের লাইসেন্স শাখায় চাকরি করতেন।

আপনার মতামত প্রদান করুন

টি মন্তব্য

Insurance Loans Mortgage

Developed by:

.